আরবি ত বলা থেকে তবলা।প্রথম তবলা আবিষ্কার করেছিলেন আরবদেশের জুবল এর পুত্র টুবল,তা নাম অনুসারেই তবল নাম করণ করা হয়।এই তবল থেকেই তবলা হয়েছে।তবলার আক্ষরিক বা বিশেষ অর্থ বোধকতা নেই। তখন কেবল মাত্র এটির ব্যবহার আরব সঙ্গীত শিল্পীদের মধ্যেই দেখা যেত।পরবর্তীতে আরবের শিল্পীদের সঙ্গীতের সূত্র ধরেই এই তবল পারস্যে আসে।পারস্যের […]

আধুনিক কালে ভারতীয় উচ্চাঙ্গ সংগীতকে বিশৃঙ্খলার পংকোদ্বার হতে উদ্ধার করার জন্য ভারতবর্ষে ২জন মহাপুরুষ এর আবির্ভাব ঘটেছিল।তাদের মধ্যে একজন হলেন পণ্ডিত বিষ্ণু নারায়ণ ভাতখন্ডে।১৮৬০ খ্রিস্টাব্দের ১০ই আগষ্ট বোম্বাই এর বালেশ্বর নামক স্থানে তাঁর জন্ম হয়।ছোটবেলা থেকেই তিনি মায়ের নিকট ভজন গান আর কাশীর বিখ্যাত বমন দাস এর নিকট সেতার শিখেছিলেন।যদিও […]

খ্রিস্টীয় চতুর্দশ শতাব্দীতে বিখ্যাত সুফি সাধক ও দরবেশ নিজামুদ্দিন আউলিয়ার শিষ্যত্বে ভারতবর্ষে খ্যাতি লাভ করেন আবুল হাসান ইয়ামিন আল-দিন মাহমুদ ওরফে আমির খসরু।তিনি উত্তর ভারতের ইহাত জেলার পাতিয়াতলি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।তাঁর জন্মসাল সম্পর্কে কেউ সঠিকভাবে বলতে পারে না তবে ১২৫৩-১২৫৪ খ্রিস্টাব্দের মধ্যেই তাঁর জন্ম।সেসময় ভারতবর্ষের বিখ্যাত বিজেতা চেঙ্গিসখান মঙ্গোলীয়দের আক্রমণের […]

মধুবানি হলো বিহার রাজ্যের একটি জেলা,আর মিথিলা এরই একটি অঞ্চল এখান থেকেই উদ্ভব এই মধুবানি চিত্রকলার।এটা ২৫০০ বছরের পুরোনো একটা লোকশিল্প। মধুবানি চিত্রকলা মূলত এসেছে হিন্দুদের ধর্মগ্রন্থ রামায়ণ থেকে।প্রাচীন কালে এই মিথিলার রাজা ছিলেন জনক,আর সীতা ছিলেন তার কন্যা।তিনি সীতার বিবাহ উপলক্ষে নকশা করার জন্য তাঁর চিত্রশিল্পীদের মধুবানি নকশা করার […]

অরিগ্যামি শব্দটির সাথে আমরা কম বেশি সবাই পরিচিত, নিজেদের অজান্তেই।ছোটবেলায় অরিগ্যামি নিয়ে খেলে নি, এমন মামুষ খুব কমই খুঁজে পাওয়া যাবে। বৃষ্টির পানিতে কাগজের নৌকা বানিয়ে ভাসানোর স্মৃতি কিংবা বন্ধুদের সাথে এরোপ্লেন উড়ানোর স্মৃতি হয়ত আমাদের সবারই আছে।কিন্তু তখন কি আমরা কেউ জানতাম এই কাগজ ভাঁজ করে করে কিছু বানানোর […]

ঘূর্ণিঝড় হলো প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মের মধ্যে অস্বাভাবিক ও ব্যতিক্রম ঘটনা।সাধারণ ভাবেই গ্রীষ্মকালে উত্তপ্ত বায়ুর কারণে নিম্নচাপের ফলে বায়ুর ঘাটতি পড়ে আর তা পূরণের জন্য অন্য এলাকার শীতল বায়ু সে এলাকা দখল করে যার ফলে একটা বায়ুর ঘূর্ণি তৈরী হয়,আর এই স্বাভাবিক প্রক্রিয়াই ঝড়, কিন্তু যখন এটি অস্বাভাবিক রূপ নেয় তখন […]

ভূ পৃষ্ঠের নিচে ভূত্বকে এক বা একাধিক মৌলিক পদার্থ রয়েছে যেমন হীরা,সোনা,তামা,সালফার, সিলিকেট, অক্সিজেন ইত্যাদি। এগুলোর বেশিরভাগই মৌলিক পদার্থ। আর এসব মৌলিক পদার্থের সমন্বয়ে তৈরী ধাতু, অধাতু গুলোর সমন্বয়ে গঠিত এই খনিজ। খনিজ মূলত অনেকগুলো মৌলিক পদার্থের সমন্বয়ে তৈরী তাই এটি একটি যৌগিক পদার্থ। (adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({}); এসকল […]

অনেকের ধারণা মতে,বহুমূল্য ডায়মন্ড বা হীরা যা কিনা মাটির অভ্যন্তরে থাকা কয়লা থেকেই পাওয়া যায়।কিন্তু এ ধারণা (আংশিকভাবে বললেও বলা ভুল হবে) সম্পূর্ণ সঠিক নাহলেও কিঞ্চিৎ সঠিক।কারণ, কয়লা বলে যেটাকে আমরা জানি সেটা হলো কার্বনের একটা রূপ মাত্র।কোক বা কয়লা মূলত পৃথিবীর কয়েকশ হাজার বছরের পুরোনো উদ্ভিদের জীবাশ্ম। কিন্তু ডায়মন্ড […]