লালনগীতি চিরদিন জল ছেঁচে মোর জল ছাড়ে না এ ভাঙ্গা নায়। এক মালা জল ছেঁচতে গেলে তিন মালা যোগায় তেতালায়।। ছুতোর বেটার কারসাজিতে জনম তরীর ছাদ মারা নয় । তরীর আশেপাশে কাষ্ঠ সরল মেজেল কাঠ গড়েছে তলায়।। আগায় মোর মন সর্বক্ষণ বসে বসে চোকম খেলায়। আমার দশা তলা ফাঁসা জল […]

গান -লালনগীতি রাত পোহালে পাখি বলে দে রে খাই দে রে খাই আমি গুরু কার্য মাথায় রেখে কি করি আর কথাই যাই।। এমন পাখি কে বা পোষে খেতে চায় সাগর শুষে তারে কি দিয়ে জগাই।। আমার বুদ্ধি গেল সাধও গেল নাম হলরে পেটুক সাঁই ।। আমি বলি ও আত্মারাম মুখেতে […]

খালি ভাঁড় থাকবে রে পড়ে দিনে দিন কর্পূর তোর যাবে রে উরে।। মন যদি গোলমরিচ হতো তবে কি আর কর্পূর যেত। তিলক আদি না থাকিত সুসঙ্গ ছেরে।। অমূল্য কর্পূর যাহা ঢাকা দেওয়া আছে তাহা। কেমনে প্রবেশে হাওয়া কর্পূরের ভাঁড়ে।। সে ধন রাখিবার কারণ নিলে না গুরুর স্মরণ। লালন বলে বেড়াই […]

গোষ্ঠে আর যাবনা বলাই দাদার দয়া নাই প্রানে। গোষ্ঠে আর যাবনা মাগো দাদা বলাইয়ের সনে।। বড় বড় রাখাল যারা বনে বসে থাকে তারা। আমায় করে জ্যান্তে মরা ধেনু ফিরানে।। ক্ষুধাতে প্রান আকুল হয় মা ধেনু রাখার বল থাকেনা। বলাই দাদা বোল বুঝেনা কয় কথা হেনে।। বনে যেয়ে রাখাল সবাই বলে […]

চাঁদ ধরার ফাঁদ জান না রে মন লেহাজ নাই তোমার নাচানাচি সারএকবার লাফ দিয়ে ধরতে চাও গগন।।সামান্যে রসের মর্ম পাবে কেকেবল প্রেমরসের রসিক সে।সে প্রেম কেমন, কর নিরুপনপ্রেমের সন্ধি জেনে থাক চেতন।।ভক্তিপাত্র আগে কর নির্নয়মুক্তিদাতা এসে তাতে বারাম দেয়।নইলে হবে না প্রেম উপাসনামিছে জল সেচিয়ে হবে মরন।।মুক্তিদাতা আছে নয়নের অজানভক্তিপাত্র […]

মানুষ ভজলে সোনার মানুষ হবি। মানুষ ছাড়া ক্ষ্যাপা রে তুই মূল হারাবি।। এই মানুষে মানুষ গাথা যেমন গাছের আলকলতা। জেনে শুনে মুড়াও মাথা জাতে ত্বরবি।। দ্বিদলে মৃণালে সোনার মানুষ উজলে। মানুষ গুরুর কৃপা হলে জানতে পাবি।। এই মানুষ ছাড়া মন আমার পড়বি রে তুই শূন্যকার। লালন বলে মানুষ আকার ভজলে […]

সবে কি হবে ভবে ধর্মপরায়ণ।যার যা সেই সে করেতোমার বলা অকারণ।। কাঁটার মুখ কেউ চাছে নাময়ূর চিত্র কেউ করে না।এমনি মতে সব ঘটনাযার যাতে আছে সৃজন।। চিন্তামণি পদ্মিনী নারীএরাই পতিসেবার অধিকারী।হস্তিনী শঙ্খিনী নারীতারা কর্কশ ভাষায় কয় বচন।। শশক পুরুষ সত্যবাদীমৃগপুরুষ উধধরভেদি।অশ্ব বৃষ বেহুশ নিরবধিতাদের কুকর্মেতে সদাই মন।। ধর্ম কর্ম আপনার […]

পারে কে যাবি তোরা আয় না জুটে।নিতাই চাঁদ হয়েছে নেয়ে ভবের ঘাটে।। হরি নামের তরী আররাধা নামের বাদাম তাঁর।পারে যেতে ভয় কিরে আর নায়ে উঠে।। নিতাই বড় দয়াময়পাড়ের কড়ি নাহি লয়এমন দয়াল মিলবে কি আর এই ললাটে।। ভাগ্যবান যেই ছিলসেই তরীতে পার হলো।লালন ঘোর তুফানে প’লো ভক্তি চটে।। Please follow […]

জাত গেল জাত গেল বলেএকি আজব কারখানা ।সত্য কাজে কেউ নয় রাজিসবই দেখি টা না না না।। আসবার কালে কি জাত ছিলেএসে তুমি কি জাত নিলে।কি জাত হবা যাবার কালেসেই কথা ভেবে বল না।। ব্রাহ্মণ চণ্ডাল চামার মুচিএক জলে সব হয় গো শুচি।দেখে শুনে হয় না রুচি যমে তো কাউকে […]

বেঁধেছে এমন ঘর শুন্যের উপর পোস্তা করে।। ঘরের সবে মাত্র একটি খুঁটিঘরের সবে মাত্র একটি খুঁটিখুঁটির গোঁড়াই নাইকো মাটি।কিসে ঘর রবে খাঁটিঝড়ি তুফান এলে পরে।। ঘরের মুলাধার কুঠুরি নয়টাতার উপরে চিলেকোঠা।তাহে এক পাগলা বেটাবসে একা একেশ্বরেঘরের উপর নিচে সারি সারিসাড়ে নয় দরজা তারি।লালন কয় যেতে পারিকোন দরজা খুলে ঘরে।। Please […]