Colorgeo

Classroom of Money and Wisdom for Earth Science

জাপানিজ ছেলেরা কেমন হয় তাদের ব্যবহার

Spread the love

ভালবাসা প্রকাশ করার ক্ষেত্রে জাপানিজ (Japanese) ছেলেমেয়েরা একেবারে আধুনিক। তারা ফুল দিয়ে ভালাবাসা প্রকাশ করে। অর্থাৎ যাকে ফুল দেয়া হবে মানে ভালবাসি। ভালবাসায় মেয়েরাই প্রধান থাকে, ইচ্ছা স্বাধীন মেয়েদেরই বেশি থাকে।

আর সাধারণত ছেলেরা মেয়েদের অধিনস্ত থাকে যদি কোন মেয়ে, কোন ছেলেকে ভালবাসার এক পর্যায়ে ভাল না লাগে তবে স্রেফ জানিয়ে দিবে আমি অন্য কোন ছেলেকে ভাল বাসি। যদিও এসব ক্ষেত্রে এমন টা খুব কম ই হয়। তবে মেয়েরাই প্রধান জাপানের প্রেমের দুনিয়ায়।

অবাক লাগছে!! আর ভালবাসার দিন গুলোতে মেয়েদের কথা বা অনুরোধ ছেলেরা অক্ষরে অক্ষরে পালন করে! জাপানের সমাজ মেয়ে শাসিত মনে হয় আমার কাছে। তারা ভাল বাসাকে অনেক গুরুত্ব দেয়। প্রেমের বিয়েতে যে কোন পরিচিত কোন মানুষ বা বন্ধু স্বাক্ষী হিসাবে থাকলেই হবে আর কারো লাগবে না।

বিয়ে পাক্কা আইনগত ভাবে! তবে ভালবাসার দিন গুলো তাদের জন্য বিশেষ রকমের হয়। তারা এমনকি বিদেশে ঘুরতে যায় ভালবাসার মানুষের সাথে যে কোন বিশেষ দিনকে সামনে রেখে বা কোন দেশের ভ্রমণের জন্য উপযুক্ত ঋতু বিবেচনা করে। এই সময়ে তারা জীবনের সাথি নির্বাচনে পরিক্ষিত হয়।

জাপানিজ ছেলেরা কেমন হয় আর মেয়েরাই বা কেমন হয়

জাপানের মেয়েরা খুব লাজুক প্রকৃতির। কোন কোন মেয়ে ভালবাসার কথা কোন দিন ও ভালবাসার মানুষকে মুখে প্রকাশ করে না। অনেক কে দেখা যায় ভার্চুয়াল জগতের ডল বা কোন ক্যারেকটার এর সাথে প্রেমের বন্ধনে আবদ্ধ হতে। অর্থাৎ ডল ই তার সব।

একা একা কথা বলা। মনের কষ্ট হাসি আনন্দ প্রকাশ করা। এবং ডলকে নিজের মত করে সাজানো। আমি যে ল্যাব এ থাকতাম সেখানে, একজন জাপানিজ ছাত্র ছিল, সে পড়াশুনায় তুখড়, বনেদি জার্নালে গবেষণা প্রকাশনা। কিন্তু তার টেবিল এ দেখতাম নতুন নতুন ডল, জাপানিজ পোষাকে সুন্দর করে সাজানো থাকতো একটা নয় একই ধরনের ডল কয়েকটা।

এবং এসব ডল এর দাম ও অনেক দশ হাজার থেকে বিশ্ব হাজার।

Japanese দের ব্যবহার অমায়িক।যাকে বলে ভদ্র জাতি। সবাই এই রকমের তবে কিছু মানুষ আছে তারা ঠিক অন্য রকম। Japanese রা কোন মানুষকে সাহায্য করার জন্য মন প্রাণ দিয়ে করে থাকে। তারা নিজেরদের কাজে খুব ই একনিষ্ঠ।

3 Real Life Japan Story of My Life About Japanese

তবে জাপানের ছেলেমেয়েদের ব্যাপারে ঘনিষ্ঠভাবে না মিশলে বিষয়টি উপলব্ধি করা যায় না তারা অনেক বেশি আবেগপ্রবণ। 

তারা যখন কোন বিষয়ে চিন্তা করে সেটা গভীরভাবে চিন্তা করে এবং কাউকে ভালবাসলে গভীরভাবে ভালোবাসে। 

কাজে করবে তাদের একনিষ্ঠতা থাকে শতভাগ। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা অনেক বেশি আবেগপ্রবণ হওয়ার কারণে কান্না করে দেয়