Colorgeo

Classroom of Money and Wisdom for Earth Science

Russell Viper নিধন কেন সমাধান নয়?

Spread the love

রাসেল ভাইপার (Russell Viper) নিধন কেন সমাধান নয়?

Russell Viperবর্তমানে বাংলাদেশে চন্দ্রবোড়া সাপটি নিয়ে খুব চিন্তিত মানুষ। অনেকই এই সাপের বিষের ভয়াবহতা দেখে একরকম আতঙ্কে আছে। যদিও বিষয়টি আতঙ্কের ।দেশের কৃষকরা এর প্রধান শিকার। কারণ এই সাপ সাধারণত মাঠে ধান ক্ষেতে থাকে তাই কৃষক মাঠে কাজ করতে গেলে তারা সাপের কামড়ে মারা যাবার ভয়ে আছে।

তবে এখন দেশ জুড়ে যে মনোভাব বিরাজ করছে তা হল এই সাপটিকে সমূলে নিধন করার পক্ষে অনেকেই যা একেবারেই ক্ষতিকারক। শুধু এই সাপ ই নয় যে কোন সাপ ই বিপদজনক যদি তাদের উত্যক্ত করা হয়। সাপ শুধু শুধু কামড় দেয় না। তারা আত্ম রক্ষার জন্য কামড় দেয়। এখন সবাই উচিত সচেতন হওয়া এবং মাঠে লম্বা বুট পরে কাজ করা। কারণ সাপ ইঁদুর খায় এবং ফসলের রক্ষা করে ইঁদুরের হাত থেকে।

 

রাসেল ভাইপার নিধন করা উচিত নয় কারণ এটি বাস্তুতন্ত্রের উপর বিভিন্ন নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে।

 

কিছু গুরুত্বপূর্ণ কারণ নীচে দেওয়া হল:

 

  1. বাস্তুতান্ত্রিক ভারসাম্য রক্ষা:

 

রাসেল ভাইপার খাদ্য শৃঙ্খলে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তারা ইঁদুর, ছোট স্তন্যপায়ী প্রাণী এবং অন্যান্য ক্ষতিকারক প্রাণী নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। যদি রাসেল ভাইপারের সংখ্যা কমে যায়, তাহলে এই ক্ষতিকারক প্রাণীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে পারে, যা ফসলের ক্ষতি এবং রোগ ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি বাড়াতে পারে।

রাসেল ভাইপার শিকারীদের জন্যও খাদ্য প্রদান করে। সাপ, শিকারী পাখি এবং অন্যান্য প্রাণী রাসেল ভাইপারকে খাদ্য হিসাবে খায়। যদি রাসেল ভাইপার নির্মূল করা হয়, তাহলে এই শিকারীদের খাদ্যের উৎস কমে যাবে, যার ফলে তাদের জনসংখ্যাও হ্রাস পেতে পারে।

 

  1. বিষের বিপদ:

 

রাসেল ভাইপারের (Russell Viper) বিষ মানুষের জন্য মারাত্মক হতে পারে। যদিও মৃত্যুর ঘটনা বিরল, তবে রাসেল ভাইপারের কামড়ানো ব্যথা, ফোলাভাব এবং অন্যান্য গুরুতর স্বাস্থ্য সমস্যার কারণ হতে পারে।

রাসেল ভাইপারের বিষ পরিবেশের জন্যও ক্ষতিকর হতে পারে। যদি একটি রাসেল ভাইপারকে হত্যা করা হয়, তাহলে তার বিষ পরিবেশে ছড়িয়ে পড়তে পারে এবং অন্যান্য প্রাণী বা জলের উৎসকে দূষিত করতে পারে।

 

  1. নৈতিকতা:

 

সকল প্রাণীরই জীবনধারণের অধিকার রয়েছে। রাসেল ভাইপার একটি প্রাণী যা আমাদের সাথে এই গ্রহ ভাগ করে নেয়। তাদের হত্যা করা নৈতিকভাবে ভুল।

 

  1. সমস্যার সমাধান নয়:

 

গণহারে রাসেল ভাইপার (Russell Viper) নিধন এই সমস্যার দীর্ঘমেয়াদী সমাধান নয়। যতদিন না আমরা তাদের আবাসস্থল ধ্বংস এবং মানুষের সাথে তাদের সংঘাতের কারণগুলি সমাধান করব, ততদিন নতুন রাসেল ভাইপার তাদের স্থান নিতে থাকবে।

 

রাসেল ভাইপার (Russell Viper) নিধনের বিকল্প কি হতে পারে?

 

রাসেল ভাইপার নিধনের পরিবর্তে, আমরা তাদের সাথে সহাবস্থান করতে শিখতে পারি। এই লক্ষ্য অর্জনের জন্য আমরা বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে পারি:

 

  1. আবাসস্থল রক্ষা:

 

রাসেল ভাইপারের সংখ্যা নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য তাদের আবাসস্থল রক্ষা করা গুরুত্বপূর্ণ। আমরা বন উজাড় রোধ করতে পারি এবং তাদের প্রজনন ও খাদ্যের জন্য প্রয়োজনীয় আবাসস্থল তৈরি করতে পারি।

 

  1. মানুষের সাথে সংঘাত কমানো:

 

মানুষের সাথে রাসেল ভাইপারের সংঘাত কমানোও গুরুত্বপূর্ণ। আমরা মানুষকে রাসেল ভাইপারের বিষ সম্পর্কে শিক্ষিত করতে পারি এবং তাদের সাথে সংস্পর্শে আসার ঝুঁকি কমাতে সাবধানতা অবলম্বন করতে শেখাতে পারি। উদাহরণস্বরূপ, আমরা মানুষকে তাদের বাড়ির আশেপাশে পরিষ্কার রাখতে উৎসাহিত করতে পারি, যা রাসেল ভাইপারের জন্য আকর্ষণীয় খাদ্য এবং আশ্রয়স্থল হিসাবে কাজ করতে পারে।

 

  1. বিকল্প নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি:

 

আমরা রাসেল ভাইপারের সংখ্যা নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য বিকল্প নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতিও ব্যবহার করতে পারি। উদাহরণস্বরূপ, আমরা বিষহীন ট্র্যাপ ব্যবহার করতে পারি বা রাসেল ভাইপারের প্রজনন ক্ষমতা হ্রাস করার জন্য জৈব নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা ব্যবহার করতে পারি।গণহারে রাসেল ভাইপার নিধনের পরিবর্তে, আমাদের তাদের সাথে সহাবস্থান করতে শিখতে হবে। আমাদের তাদের আবাসস্থল রক্ষা করতে হবে এবং তাদের সাথে সংস্পর্শে আসার ঝুঁকি কমাতে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। আমরা রাসেল ভাইপারের বিষ থেকে নিজেদের রক্ষা করার জন্য আরও ভাল উপায়ও তৈরি করতে পারি, যেমন উন্নত অ্যান্টি-ভেনম তৈরি করা।

 

  1. উন্নত অ্যান্টি-ভেনম:

 

আমরা রাসেল ভাইপারের বিষ থেকে নিজেদের রক্ষা করার জন্য আরও ভাল উপায় তৈরি করতে পারি, যেমন উন্নত অ্যান্টি-ভেনম তৈরি করা। এটি রাসেল ভাইপারের কামড়ানোর কারণে মৃত্যু এবং অসুস্থতার হার কমাতে সাহায্য করবে।

 

  1. গবেষণা ও শিক্ষা:

 

আমাদের রাসেল ভাইপার এবং তাদের আচরণ সম্পর্কে আরও জানতে গবেষণায় বিনিয়োগ করা উচিত। এই জ্ঞান আমাদের তাদের সাথে আরও ভালভাবে সহাবস্থান করতে এবং তাদের সংখ্যা নিয়ন্ত্রণ করার আরও কার্যকর উপায় তৈরি করতে সাহায্য করবে। আমাদের স্কুল এবং সম্প্রদায়গুলিতে রাসেল ভাইপার সম্পর্কে শিক্ষাও প্রচার করা উচিত। এটি মানুষকে এই সাপ সম্পর্কে আরও সচেতন করতে এবং তাদের প্রতি ভয় কমাতে সাহায্য করবে।

 

পরিশেষে, রাসেল ভাইপার নিধন একটি অযুক্তিসঙ্গত এবং ক্ষতিকর ধারণা। এটি বাস্তুতন্ত্রের ভারসাম্য ধ্বংস করে এবং মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকি সৃষ্টি করে।