আত্মবলিদান

বিজয় পাল
—————–
আমি তেরোশত নদীর প্রতিনিধি হয়ে বলছি,
জোয়ার ভাটার এই উত্থান পতনই
আমার জীবন।
শত শত দুর্গম পথ ডিঙিয়ে
ছুটে চলি আমি সাগর পানে
না মানি কোনো বাঁধা, বারণ।

আমি বিশাল সমুদ্র বলছি,
আমিও যে স্বাধীন তা কিন্তু নয়,
আমাকে পাহারা দিচ্ছে ঐ বিশাল আকাশ।
কোনো এক সীমান্তে সে আমাকে ছুঁয়েছে
সেখানেই যেন বন্দি আমি
শুধু পাহারা দিয়েই তার মিটেনি আশা।

আমি সকল পাহাড় পর্বত বলছি,
আকাশের সনে ভাব করিতে মাথা উঁচু করি।
পাষাণ বলিয়া ফিরাইয়া দেয় মোরে পাষা,
এ বেদনা আমি সহিতে না পারি নয়নে ঝরে বারি।

এ বৃক্ষের বেদনা কহিব কি আর
ফুলে ফলে ভরাইয়া তুলি এ জগৎ সংসার।
তবু কেন ভালোবাসা পাইনা সবার?
হাওয়া দিই, ছায়া দিই তবু
ডাল ভাঙে আমার।

ভরা বসন্তের কোকিল পাখি আমি
কৃষ্ণচূড়ার ঐ মগডালে বসিয়া গান শুনাই দিনভর।
মানবকুল বড্ড ভালোবাসে আমায়,
বন্দুক আর গুলতি দিয়া তারা করে সমাদর।

উদারতার প্রতীক আমি সুনীল আকাশ
বৃষ্টির লাগি এ বক্ষে মেঘ জমাই
গ্রীষ্মের প্রখরতা নিবারণে।
অঝোর ধারায় প্রকৃতি পায় নতুন প্রাণ
প্রকৃতির এই প্রাণোচ্ছলতায় আমি
সাজিয়া উঠি রংধনুর রঙে।

বিজয় পাল
প্রথম বর্ষ, ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগ
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।

প্রকাশিত: ‘বর্ণালী’ মাসিক ম্যাগাজিন, অক্টোবর সংখ্যা, ২০২০

 

Please follow and like us:

Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

নারী

Mon Oct 5 , 2020
মোঃ রফিকুজ্জামান রফিক———————————-তোমার জন্মের দিন বাবা মিষ্টি বিতরণ করেনি;সেদিন বাবার হাসি মুখটা কালো হয়ে গিয়েছিল।তোমার প্রথম পা পড়েছিল অমসৃণ পথে-তুমি বাবার নতুন চিন্তা,কারণ তুমি নারী-সমাজ তোমাকে অপয়া বলবেই। আজ,তোমার বয়স ষোল-এখন তুমি আকর্ষণীয়া;রাস্তার দুষ্ট ছেলেরা তোমাকে দেখে শিশ দেয়;তোমার ফেসবুকে কত ছেলে বার্তা পাঠায়;আজ কত ছেলের কামনার বস্তু তুমি।কিন্তু তুমি […]