দামি আর দামী

লিটন আকন্দ
—————
সব বিষয়ে যে লেটার পেয়েছে
সে নিশ্চয়ই অনেক দামি,
টেনেটুনে যে পাশ করেছে
তারেও স্মরি আমি।
অভিনন্দন জানাই তোমাদের দিয়ে গোলাপ ফুল,
কম বেশি সবাই দামী
মানতে করো না ভুল।
পড়ার ক্ষতি হবে বলে
বাইরে যাওয়া বারণ,
একটা পর্দাই যখন রুমের দেয়াল,
হয় পড়ার ক্ষতির কারণ।

জন পাঁচেক মাস্টার দিত,
ভালো ফল যাতে হয়,
ছোটদের পড়াতে হবে এটাতো পড়ার বাইরে নয়!
ঘুম ভাঙেনি,চোখ কচলে
কারও কোচিংএ হয়েছে যেতে,
বাবা গিয়েছে ইটের ভাটায়, তুই একটু যা ক্ষেতে।
স্কুল শেষ দুপুরে খেয়ে কেউ দিয়েছে ঘুম,
ঘুমাস নে বাবা মাঘ ফাল্গুনে ধান লাগানোর মৌসুম।
বিকালে কারও স্যার এসেছে, মা দিয়েছে চা,

বাজারটা যা করে আন বাবা দেরি হলে কিছু পাবি না।
গোঁধুলি কারও কেটেছে হেঁটে কেউ গিয়েছে ছাদে, দায়িত্বের মাঝে বুঝে নি সে পা দিয়েছে ফাঁদে।
সন্ধ্যায় ও পড়েছে একেলা তার নিজের শান্ত কক্ষে,
এদিকে সাথে বসেছে আরও তিনটা পড়াতে হবে প্রত্যেককে।
“পড়া ছাড়া কিছু করাই নাকি?” মা বলবেন রেগে,

সারাদিন কত কাজ করেছিস আর পড়িস না জেগে।
ভালো ফল করেছো যারা সব সুবিধা পেয়ে,
একটু খারাপ করেছে যারা ক্ষুদ্র নয় তাদের চেয়ে।
অভিনন্দন পাবে সবাই যারাই সফলকাম,
গোবরে পদ্ম হয়েছে যারা তাদের জানাই প্রণাম।
বিফল হয়েছে যারা
ফেলে দেবার তো নয়,
ঘুরে দাঁড়াও, ভুলো নাকো
পরিশ্রমীরাই সফল হয়।

লিটন আকন্দ
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়।

প্রকাশিত: বর্ণালী মাসিক ম্যাগাজিন-২য় সংখ্যা

Please follow and like us:

Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

অপেক্ষা

Wed Sep 9 , 2020
মো: আহনাফ শাকিল (সেনা) চৌধুরী ——————————————- তুমি বৃষ্টি হয়ে ফিরে এসো আজ ভিজিয়ে দাও আমায়, শুন্য হৃদয় পূর্ণ হউক তোমার অফুরন্ত প্রণয়। রং তুলিতে আঁকতে পারিনি তোমার চাঁদ মুখের হাসি, হৃদয় মাঝে রেখেছি হায় তোমার অনন্য প্রতিচ্ছবি। তোমায় ছুইতে ব্যর্থ আমি হেটেছি অনেকটা সারণি, তোমার জন্যই আজো বসে অপেক্ষার শেষ […]