colorgeo.com

Disaster and Earth Science

মৃত্যু

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এস.এম.ইমরানুল হক
—————————–
জীবন মানে যদি হয়-
ক্রমাগত মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাওয়া,
তবে মৃত্যু মানে জীবনের সবচেয়ে স্বাভাবিক পরিণতি।
আপনার জীবন বর্ণাঢ্য হতে পারে,
কিংবা আপনার জীবন অনাড়ম্বর হতে পারে,
সে আপনি যেভাবেই জীবন কাটান
এই জীবন পাখি একদিন উড়ে যেতে বাধ্য,
পাখি উড়ে যেতে বাধ্য,তার আপন আলয়ে।

মৃত্যু মানে–
ভালোবাসার মানুষগুলোকে কিছু না বলেই
হয়তো হঠাৎ চলে যাওয়া।
পৃথিবীতে আমরা অনেক কিছুর উর্ধ্বে অবস্থান করতে পারি,
কিন্তু মৃত্যুর উর্ধ্বে আমরা কেউ নই।

রবি ঠাকুর যতই কবিতা আওড়াক,
তবুও এটাই সত্যি যে-
একবার চলে গেলে সকল খেলায় আপনি আর নেই,
রোজ প্রভাতে আপনি নেই কোথাও,
আর কোনোদিনই আপনি পারবেন না ফিরে আসতে।
আপনি পারবেন না আর কখনো
মায়ের হাতের কষা মাংসের ঝোল খেতে।
আপনি পারবেন না প্রিয়জনের পাশে বসে
সুন্দর একটা বিকেল উপভোগ করতে।
আপনি পারবেন না ছাদে বসে জোছনা বিলাসে মেতে উঠতে।
আপনি পারবেন না বলতে-
“বাবা, আমি তোমাকে অনেক ভালোবাসি।”

মানুষের মৃত্যু আসে হঠাৎ করেই,
খুব বেশি আচমকাই।
হয়তো আপনি সুযোগ পাবেন না
কারো থেকে ক্ষমা চাওয়ার,
কিংবা সুযোগ পাবেন না
কাউকে ক্ষমা করার।
হয়তো একবুক হাহাকার উপহার দিয়ে বিদায় নেবেন
আপনার প্রিয়জন।
কিন্তু তখনো মেলানো হবে না বহু না মেলা হিসাব,
ভাঙ্গানো হবে না ছোট বোনটার অভিমান,
কিংবা বেয়াদবির জন্য ক্ষমা চাওয়া হবে না
বড় ভাইটার কাছ থেকে।

হয়তো বা শেষ নিঃশ্বাসের আগে অভিমান ভেঙে
প্রিয়জনদের বলা হয়ে উঠবে না -“ভালোবাসি।”

যে দুনিয়ার মোহে
প্রিয়জনের সাথে বসে মিষ্টি করে দুটো কথা বলতে পারেননা,
সেই দুনিয়া আপনার জন্য কখনোই অপেক্ষা করবে না।
আপনার জন্য অপেক্ষা করবে
আপনার মায়ের আচল।
আপনার অপেক্ষায় অজস্র বিকেল কাটিয়ে দেবে
আপনার প্রেয়সী।
হয়তো আপনার সন্তান আপনার মায়ায় নির্ঘুম কাটাবে
বেশ কিছু বিশেষ রাত।
কিন্তু এতোসবের মাঝেও
আপনার বাড়ির কৃষ্ণচূড়া ফুটবে
তার নিজ নিয়মে।
প্রতিদিনকার মতো সূর্যও উঠবে তার আপন নিয়মে,
শুধু ডুবে যাবেন আপনি।

একবার ভেবে দেখুন–
পৃথিবীতে আপনার হাজার বিঘা জমি থাকতে পারে,
কিন্তু আপনার শেষ ঠিকানার জন্য
মাত্র সাড়ে তিন হাতই যথেষ্ট।
দুনিয়ায় আপনার কোটি কোটি টাকা থাকতে পারে,
কিন্তু আপনার শেষ কাজের জন্য এক হাজার টাকার একটি নোটই হয়তো যথেষ্ট।
পৃথিবীতে আপনি যত দামী গাড়িই ব্যবহার করুন না কেন
আপনার শেষ যাত্রার বাহন
সর্বোচ্চ এলুমিনিয়াম এর তৈরি একটি খাটিয়া।

তাই বলছি সময় খুব কম,
হয়তো যতোটা আপনি কল্পনা করতে পারছেন,
তারচেয়ে অনেক কম।
নিশ্চিত মৃত্য দিয়ে ঘেরা এই জীবনে
মোহের বশে প্রিয়জনকে ভুলে যাবেন না।
আজ থেকে জীবনের সব হিসাব মেলাতে শুরু করুন।
এখনো অনেক কাজ বাকী,
আমার,আপনার,আমাদের সবার।
প্রিয়জনের সাথে বসে জোছনা বিলাস করা বাকী,
কৃষ্ণচূড়ার রঙে মুগ্ধ হয়ে
একটা কবিতা লেখা বাকী।
সন্তানের পাশে বসে মিষ্টি করে
কিছু গল্প করা বাকী।
আপনজনদের সাথে
আনন্দের কিছু মুহূর্ত কাটানো এখনো বাকী।
জীবনের অপূর্ণ ইচ্ছেগুলোকে পূর্ণতা দেয়া বাকী।
এখনো বাকী প্রিয় মানুষগুলোকে বলা- “ভালোবাসি”।
কারো অনুরোধের ঢেকি আপনাকে গিলতে হবে না।
আপনি শুধু মনের কোণে সুপ্ত ভালোবাসাগুলোকে
প্রকাশ করতে শুরু করুন।

মনে রাখবেন–
আদমশুমারী তালিকায় হয়তো আপনি কেবল একটি সংখ্যা,
কিন্তু আপনার আপনজনদের কাছে আপনিই তাদের গোটা পৃথিবী।
তাই চলে যাওয়ার আগে সুদ কষার অংক না কষে,
যোগের অংক কষুন,
কেননা দিনশেষে আপনি নিজেই তাদের জন্য একটা বিরাট বিয়োগ চিহ্ন একে দিয়ে চলে যাবেন।

এস.এম.ইমরানুল হক
১ম বর্ষ,এমবিবিএস
খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ।

প্রকাশিত: বর্ণালী মাসিক ম্যাগাজিন (১ম সংখ্যা)

Please follow and like us:

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
%d bloggers like this: